বরিশালে শুরু হলো নির্বাচন কমিশনের তদন্ত।।

 

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে ভোট গ্রহন স্থগিত থাকা ১টি কেন্দ্র এবং ফলাফল স্থগিত থাকা ১৫টি কেন্দ্রসহ মোট ৩০টি কেন্দ্রের অভিযোগ তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শনিবার (১১ আগষ্ট) বেলা ১১ টা থেকে নগরের কাশিপুরস্থ বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের যুগ্ম সচিব (নিঃ ব্য-২) খোন্দকার মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে ৪সদস্য বিশিষ্ট একটি টিম এই তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। তদন্ত কমিটির বাকী সদস্যরা হলেন, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপসচিব মোঃ ফরহাদ হোসেন, ঢাকার নির্বাচন প্রশিক্ষন ইনিষ্টিটিউট এর উপ-পরিচালক (প্রশিক্ষন) সহিদ আব্দুস ছালাম, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের 

   

 

আজ থেকে শুরু হওয়া তদন্ত কমিটির মাঠ পর্যায়ের এ কার্যক্রম চলবে আগামী ১৪ আগস্ট পর্যন্ত এবং পরবর্তীতে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তারা তদন্ত প্রতিবেদন কমিশনে জমা দিবেন বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের যুগ্ম সচিব (নিঃ ব্য-২) খোন্দকার মিজানুর রহমান। তিনি সাংবদিকদের জানান, ৩০ জুলাই অন্য দুটি সিটি করপোরেশনের সাথে বরিশাল সিটি করপোরেশনেরও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে বিভিন্ন কারণে বরিশাল সিটি করপোরেশনের রেজাল্ট ঘোষনা করা হয়নি।

নির্বাচন কমিশন এখানে কিছু অভিযোগ পেয়েছেন। একটি কেন্দ্র প্রিজাইডিং অফিসার কর্তৃক বন্ধ হয়েছে এবং ১৫ টি কেন্দ্রের ফলাফল নির্বাচন কমিশন স্থগিত রেখেছে। আসলে এই কেন্দ্রগুলোতে নির্বাচনের দিনে কি ঘটেছে, অর্থাৎ নির্বাচনের দিনে আমরা যে সমস্ত অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি বা নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা হয়েছে তার তদন্ত করতে এসেছি।

প্রার্থীদের অভিযোগের ভিত্তিতে আরো ১৪ টি কেন্দ্র তদন্তের আওতায় রয়েছে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, প্রিজাইডিং অফিসার কর্তৃক কেন্দ্র বন্ধ ও নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ফলাফল স্থগিত থাকা ১৬ টিসহ মোট ৩০টি কেন্দ্রের বিষয়ে ৪ দিন ব্যাপি আমরা তদন্ত করতে এসেছি। যেখানে দেখা হচ্ছে আসলেই নির্বাচনের দিনে অনিয়ম হয়েছিলো কিনা এবং অনিয়ম হলে দ্বায় দয়িত্ব কার ছিলো।যার জন্য আমরা তথ্য- উপাত্ত সংগ্রহ করছি এবং সংশ্লিষ্ট প্রিজাইডিং অফিসার, ম্যাজিষ্ট্রেট, দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা, পোলিং এজেন্ট, মোবাইল স্টাইকিং ফোর্সে যারা ছিলো তাদের সাথে আলোচনা করছি ও তাদের বক্তব্য-মতামত নিচ্ছি এর বাহিরে প্রার্থীরাও আমাদের তাদের অভিযোগের কথা জানাতে পারবেন।তিনি বলেন, এখান থেকে আমরা যে ঘটনা উদঘাটন বা জানতে পারবো তা নির্বাচন কমিশনের কাছে উপস্থাপন করবো। এরপরপরই নির্বাচন কমিশন চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিবেন কেন্দ্রগুলোতে পুনরায় নির্বাচন হবে না ফলাফল ঘোষনা করা হবে।

 মোঃ রবিউল ইসলাম                                                                                                                   স্থানীয় রিপোর্টার :প্রভাত বাংলা//বরিশাল